নাগরিক প্রতিবেদক:  ‘মহা মিলনের লগ্নে শেকড়ের সন্ধানে’ এই প্রতিপাদ্যে রাজশাহী থেকে প্রকাশিত দৈনিক উপচার পত্রিকার বার্ষিক মিলন মেলা ২০২০  অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার ১৫মার্চ দিনব্যাপী নাটোর লালপুর গ্রীনভ্যালি পার্কে এ মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়। পত্রিকার রাজশাহীসহ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত সাংবাদিকদের পরিবারের সকল সদস্যদের অংশ গ্রহণে মিলন মেলার আয়োজন করা হয়। এ’ছাড়াও মিলন মেলায় অংশ গ্রহণ করেন পত্রিকার শুভাকাংখিরা। মিলন মেলার ১ম পর্বে ছিলো বিভিন্ন জেলা/উপজেলা ভিত্তিক সাংবাদিক ও তাদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে পরিচয় পর্ব। অতিথিদের পরিচয় পর্ব। বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে খেলাধুলা, ভোজন, ও সর্বশেষে খেলাধুলা ও লটারির টিকিটের পুরস্কার বিতরনী ।

দৈনিক উপচার পত্রিকার সহ-সম্পাদক মো: নুরে ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে গণধ্বনি প্রতিদিন পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক ইয়াকুব শিকদার, দৈনিক উপচার পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ফারুক আহম্মেদ চৌধুরী,পত্রিকার সহ-নির্বাহী সম্পাদক মো: মাসুদ রানা, মফস্বল সম্পাদক সারোয়ার সবুজ,মান্দা প্রতিনিধি মাহাবুবুর জামান সেতু,নাচোল প্রতিনিধি আব্দুর রহমান মানিক বক্তব্য রাখেন। এ ছাড়াও বিভিন্এজলা/উপজেলা থেকে আসা পত্রিকার প্রতিনিধিরা মিলন মেলায় পত্রিকাকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নেয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন। দৈনিক উপচার পত্রিকাকে উত্তরাঞ্চলের মানুষের প্রধান মূখপাত্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সাংবাদিকরা জোরালো ভুমিকা রাখারও অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন।

এ সময় দৈনিক উপচার পত্রিকার সহ-সম্পাদক নুরে ইসলাম মিলন বলেন, ‘সংবাদপত্র হচ্ছে জনগণের চোখ ও কান। চারপাশে যে ঘটনা ঘটে জনগণ তা সংবাদপত্রের মাধ্যমে দেখে ও শোনে। একজন সাংবাদিকের ব্যক্তিগত নৈতিকতা ও নিজস্ব চালচলন আদর্শবান হওয়া, মাঠ পর্যায়ের সাংবাদিকদের শিক্ষাগত যোগ্যতা যাচাই ছাড়া কাউকে নিয়োগ না দেওয়া, স্থানীয় সাংবাদিকদের মধ্যে ব্যক্তিগত বিভেদ পরিহার করে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার মানসিকতা তৈরি করা, একজন অন্যজন সম্পর্কে মিথ্যাচার বা কুৎসা রটানো থেকে বিরত থাকা, মানুষের কাছে আদর্শের দৃষ্টান্ত হতে পারে এ রকম ভূমিকায় নিজেদের জানান দেয়া, মানুষ সাংবাদিকদের ভয়ে সম্মান না করে আন্তরিকতা থেকে যেনো সম্মান জানায় সে দিকে খেয়াল রাখা উচিত। একজন সাংবাদিকের অযাচিত লিখনীতে যেন সম্মানিত কোন ব্যক্তির সম্মানহানি না হয় এদিকে খেয়াল রেখে আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।